Bangladesh
 16 Sep 20, 11:54 AM
 23             0

আবারো সুন্দরবনে সংগঠিত হচ্ছে জলদস্যুরা॥  

আবারো সুন্দরবনে সংগঠিত হচ্ছে জলদস্যুরা॥   

নিউজ ডেস্কঃ আবারো সুন্দরবন ও তার আশপাশে সংগঠিত হচ্ছে জলদস্যুরা। এতে আতঙ্ক বিরাজ করছে জেলেদের মাঝে। দস্যুরা সংগঠিত হলে জেলেরা জিম্মি ও নির্যাতনের শিকার হওয়ার সাথে সাথে লোকসানের মুখে পড়বেন ব্যবসায়ীরা। মৎস্যজীবী নেতারা বলছেন, দস্যুমুক্ত করে সুন্দরবনে র্যাবের ক্যাম্প স্থাপনের কথা থাকলেও, তা করা হয়নি। কোষ্ট গার্ড বলছে, এ ব্যাপারে তৎপর তারা। সুন্দরবনের ভেতরেই তৈরি হচ্ছে অস্ত্র, আর তা বিক্রি হচ্ছে উপকূলে দস্যুতায় আগ্রহী ব্যক্তিদের মধ্যে। কোস্টগার্ডের অভিযানে গত ১৭ জুন সুন্দরবনের পূর্বাংশে মেলে অস্ত্র তৈরির আস্তানা। পরের মাসের ১৪ জুলাই একই ধরনের ৫টি বন্দুকসহ গ্রেফতার হয় বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার কামাল নামের একজন। মূলত সমুদ্রে ডাকাতি করতে অস্ত্র কিনে সদস্য সংগ্রহ করছিল।

একের পর এক দস্যু ও দস্যুতার জন্য অস্ত্র উদ্ধার হওয়ায় আতঙ্ক শুরু হয়েছে উপকূলের জেলেদের মাঝে। তারা বলছেন, দস্যুরা সংগঠিত হতে পারলে মুক্তিপণের দাবিতে আবারো জিম্মি করে নির্যাতন শুরু করবে তাদের উপর। আর এতে লোকসানের মুখে পড়তে হবে মৎস্যজীবীদের। সুন্দরবনে র্যাবের ক্যাম্প স্থাপনের আশ্বাস বাস্তবায়িত না হওয়ায় দস্যুরা সংগঠিত হবার সুযোগ পাচ্ছে বলে অভিযোগ সংশ্লিষ্টদের। বাংলাদেশ ফিশিং বোট মালিক সমিতি সভাপতি মোস্তফা চৌধুরী বলেন, 'র্যাবের মহাপরিচালক সুন্দরবনে র্যাবের ৪ টি ঘাঁটি দেওয়ার কথা বলেছিল। সেগুলো হয়নি। ওগুলো হলে সবাই স্বস্তি পাবে।' অবশ্য বরগুনা কোস্টগার্ড পাথরঘাটা ষ্টেশনের ষ্টেশন কমান্ডার মেহেদি হাসান বলছে, জলদস্যুরা যাতে সংগঠিত হতে না পারে সেজন্য তারা তৎপর। ২০১৮ সালের পহেলা নভেম্বর সুন্দরবনকে জলদস্যু মুক্ত ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু দু বছর না যেতেই জেলেদের মধ্যে জলদস্যু আতংক দেখা দিয়েছে উপকূলে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')