News71.com
 Bangladesh
 04 Feb 20, 06:51 PM
 525           
 0
 04 Feb 20, 06:51 PM

পিরোজপুরে এসএসসি পরীক্ষার সময় বন্ধ হয়নি কোচিং সেন্টারগুলো

পিরোজপুরে এসএসসি পরীক্ষার সময় বন্ধ হয়নি কোচিং সেন্টারগুলো

পিরোজপুর সংবাদদাতা: এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার সময় কোনো ধরনের প্রশ্ন ফাঁস ও অপ্রীতিকর অবস্থা এড়াতে দেশের সব কোচিং সেন্টার বা অতিরিক্ত ক্লাস ও প্রাইভেট কোচিং বন্ধের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের থেকে সিদ্ধান্ত নেয় হয়। কিন্তু পিরোজপুরে কোচিং বন্ধের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের থেকে সিদ্ধান্ত কেউ মানছে না। পিরোজপুর শহরের বিভিন্ন স্থানে প্রায় ১৫টির মতো কোচিং সেন্টার তাদের নিয়মিত কার্যক্রম চালাচ্ছে। অন্যদিকে কোচিং সেন্টার সমূহের শিক্ষকরা কোচিং না বলে পড়ানোকে প্রাইভেট বলে কোচিং এ ক্লাস চালাচ্ছে নিয়মিত। এছাড়া বিদ্যালয়ে গুলোতে অতিরিক্ত ক্লাসের নামে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও এসএসসি পরীক্ষা দিন নিয়মিত সকালে এবং পরীক্ষা পরে বিকেলে বিদ্যালয়ের ক্লাস রুমে কোচিং করাচ্ছে।

শহেরর বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানাযায় , এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার সময় কোনো ধরনের প্রশ্ন ফাঁস ও অপ্রীতিকর অবস্থা এড়াতে দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকার কথা থাকলেও পিরোজপুরের শহরের মধ্যরাস্তা, আদর্শপাড়া, উকিলপাড়া, রাজারহাট, কলেজ রোড, শিকারপুর, কালিবাড়ী সড়ক, সিআইপাড়া, নড়াইলপাড়া, বসন্তপুল সড়কসহ বিভিন্ন কোচিং সেন্টারে সকাল ৬ টা থেকে শুরু করে রাত ৮ টা পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থীদের পড়ানো হয়। এছাড়া কোচিং এ শিক্ষকরা বর্তমানে তাদের শিক্ষার্থীদের নিজেদের বাসায় নিয়ে প্রাইভেট টিচিং বলে কোচিং এ কার্যক্রম চালাচ্ছে। এছাড়া কোচিং নীতিমালা উপেক্ষা করে সরকারি বিদ্যালয়ে অনেক শিক্ষক বিদ্যালয়ের শ্রেনী কক্ষে সহ বিভিন্ন স্থানে কোচিং ক্লাস পরিচালনা করে আসছে।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক আবু আলী মো: সাজ্জাদ হোসেন জানান, এসএসসি পরীক্ষার সময় সকল কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে এ নির্দেশ উপেক্ষা করে যারা কোচিং সেন্টার বা প্রাইভেট টিচিং দিবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  উল্লেখ্য, এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার সময় কোনো ধরনের প্রশ্ন ফাঁস ও অপ্রীতিকর অবস্থা এড়াতে দেশের সব কোচিং সেন্টার ২৭ জানুয়ারি থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের অবশ্যই পরীক্ষা কক্ষে নির্ধারিত আসনে বসতে হবে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সিদ্ধান্ত নেয় হয়।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন