features
 21 Sep 16, 10:55 AM
 432             0

পাল্লী আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

পাল্লী আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

 

সনজিৎ সরকার উজ্জ্বল: আজকের শিশুই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। শিশুমন বিকশিত হোক কোমল ভালবাসার পরশে। আর এ পরশ পাথর হতে পারেন একজন শিক্ষক। যিনি সত্যিকার অর্থেই মানুষ গড়ার কারিগর। তেমনি একজন মানুষ পাল্লী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আফরোজা সুলতানা। তার ভালবাসার পরশে সিক্ত পাল্লী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিশুরা। শিশুমন বিকশিত হচ্ছে দেশাত্ববোধ, বিজ্ঞানমনস্কতায়, সৃজনশীলতায় ও উন্নত জীবনের স্বপ্নদর্শনে।

শিক্ষক আফরোজা সুলতানা সহকর্মীদের নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষার লক্ষ্য পূরণ ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। অজপাড়াগাঁয়ের একটি স্কুলে শিশু বান্ধব আধুনিক শিক্ষার পরিবেশ আপনাকে বিস্মিত করবে। পাল্লী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের উপযোগি করে পাঠদান এবং এ স্কুলের সাংস্কৃতিক ও সামাজিক কর্মকান্ড একজন শিশুকে জাতীয় ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করার মাধ্যমে বাংলাদেশকে ভালবাসতে সাহায্য করছে।

কোমলমতি শিশুদের আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবদান অনন্য। প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয় কিভাবে শিশু শিক্ষার আদর্শ প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠতে পারে এমন  এক প্রশ্নের জবাবে আফরোজা সুলতানা বলেন, ‘স্কুলের সকল কার্জক্রমের সঙ্গে স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে এবং স্কুল পরিচানায় স্বচ্ছ জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে পারলে প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে আদর্শ বিদ্যাপীঠ হওয়ার পথ অনেকটাই সুগম হয়ে যায়। আর সন্তানের প্রতি মায়ের স্নেহ-ভালবাসা এবং শিশু সুলভ মন নিয়ে শিশুদের পাঠদানের বিষষটি তো রয়েছেই’।

নেপোলিয়ন বলেছিলেন, আমাকে একজন শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাদের শিক্ষিত সমাজ উপহার দিব। নেপোলিয়নের সেই মায়ের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত আফরোজা সুলতানা। যিনি পাল্লী গ্রামের সকলকে স্কুল পরিচালনার সঙ্গে সম্পৃক্ত করেছেন। স্কুলের প্রতিটি শিক্ষার্থীকে দিয়ে যাচ্ছেন সন্তানতুল্য ভালবাসা। (প্রথম পর্ব)

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')