international
 09 Nov 18, 07:29 AM
 11             0

বিজেপিকে হটিয়ে ২০১৯ সালে দিল্লীর মসনদে ফিরবে জোট সরকার॥কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী  

বিজেপিকে হটিয়ে ২০১৯ সালে দিল্লীর মসনদে ফিরবে জোট সরকার॥কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী   

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ১৯৯৬ সালের পুনরাবৃত্তি হবে ২০১৯ সালে৷ বললেন কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামী৷ গতকাল বৃহস্পতিবার তাঁর সঙ্গে দেখা করতে বেঙ্গালুরু গিয়েছিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নায়ডু৷ তার সঙ্গে বৈঠকের পর একথা জানান কুমারস্বামী৷ সারা দেশের মোদী বিরোধী শক্তিকে একজোট করতে সক্রিয় হয়েছেন তেলুগু দেশম পার্টির প্রধান চন্দ্রবাবু৷ এর আগে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই ভূমিকায় দেখা গিয়েছে৷ বিভিন্ন রাজ্যে ঘুরে তিনি মোদী বিরোধী শক্তিকে একজোট করার কাজ করেছেন৷ ২০১৯-এর জানুয়ারিতে তিনি ব্রিগেডে সমাবেশও করবেন৷ সেখানে বিজেপি বিরোধী সব দলকেই আহ্বান জানিয়েছেন। এই পরিস্থিতির মধ্যেই সক্রিয় হয়ে উঠেছেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নায়ডু৷ কয়েকদিন আগে তিনি নয়াদিল্লিতে গিয়ে দেখা করেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে৷ কংগ্রেসের সঙ্গে মহাজোটের পক্ষে সেদিনই সওয়াল করেছিলেন তিনি৷ জানিয়েছিলেন, বিভিন্ন রাজ্যে গিয়ে কথা বলবেন মোদী বিরোধী শক্তিগুলির সঙ্গে৷ গতকাল বৃহস্পতিবার তিনি হাজির হন বেঙ্গালুরুতে৷ সেখানে তিনি দেখা করেন জেডিএসের সর্বভারতীয় সভাপতি এইচডি দেবেগৌড়া ও তাঁর ছেলে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামীর সঙ্গে৷

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার কর্ণাটকে উপ-নির্বাচনের ফল বেরিয়েছে৷ তাতে কংগ্রেস-জেডিএস জোটের কাছে জোর ধাক্কা খেতে হয়েছে বিজেপিকে৷ তার পর গোটা দেশে মহাজোটের পক্ষে আওয়াজ উঠতে শুরু করেছে৷ সেই পরিপ্রেক্ষিতে এদিনের বৈঠক যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷ চন্দ্রবাবু নায়ডু কড়া ভাষায় নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেন৷ সিবিআই, আরবিআই নিয়ে তোপ দাগেন প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে৷ টিডিপি সুপ্রিমোর কথায়, গণতন্ত্র বাঁচাতে বিরোধীদের এক হতে হবে৷ সিবিআই, আরবিআই-এর মতো স্বশাসিত সংস্থাগুলিকে এখন বিরোধীদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে ব্যবহার করা হচ্ছে৷ অন্যদিকে কুমারস্বামীর বক্তব্য, ১৯৯৬ সালে যেভাবে কংগ্রেসের সমর্থনে বিরোধী জোটের সরকার হয়েছিল৷ এবারও একই ভাবে বিরোধী জোট ক্ষমতায় আসবে৷ কিন্তু সেই জোটের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন? রাহুল গান্ধী? এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্য সরাসরি দেননি চন্দ্রবাবু নায়ডু৷ তাঁর কথায়, প্রধানমন্ত্রী কে হবেন, এটা না ভেবে এখন গণতন্ত্ররক্ষার কথা ভাবা উচিত৷ একাধিক আঞ্চলিক নেতা রয়েছেন, যাঁরা দেশ চালানোর জন্য যোগ্য৷ এগুলো নিয়ে পরে আলোচনা হবে৷

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')