International
 01 Dec 20, 07:53 PM
 45             0

ওআইসির বৈঠকে জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে প্রস্তাব॥নিন্দা ভারতের

ওআইসির বৈঠকে জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে প্রস্তাব॥নিন্দা ভারতের

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজারে মুসলিম দেশের জোট অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশনের ওআইসি বৈঠকে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। শনিবার ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের দু’দিনের এক বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। যাতে ভারতের সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলকে বেশ শক্ত ভাষায় নিন্দা করা হয়েছে। এদিকে রবিবার ভারত ওআইসি’র প্রস্তাবের কড়া সমালোচনা করে বলেছে জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে এ ধরনের প্রস্তাব গ্রহণের কোনো অধিকার অন্য কোনো দেশের নেই। বিবৃতিতে বলা হয় ওআইসির ৪৭তম সিএফএম অধিবেশনে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কনফারেন্সের গৃহীত রেজল্যুশনে ভুল, ভিত্তিহীন ও অযৌক্তিক দাবিগুলোকে দৃঢ়ভাবে এবং স্পষ্টভাবে প্রত্যাখ্যান করছি। বিবৃতিতে আরো বলা হয় কেন্দ্র শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ এবং আমরা সব সময় বলেছি ভারতের যেকোনো অভ্যন্তরীণ ইস্যু নিয়ে কথা বলার কোনো এখতিয়ার ওআইসির নেই। ভারত সরকারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে ওআইসির প্রস্তাবে ভারতকে নিয়ে যেসব কথা বলা হয়েছে তা তথ্যগতভাবে ভুল এবং অনভিপ্রেত। ফলে ওই সব বক্তব্য ভারত ‘পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করছে।

পাকিস্তানকে পরোক্ষভাবে আক্রমণ করে বিবৃতিতে বলা হয় এটি দুঃখজনক যে নিজেকে ওআইসি একটি নির্দিষ্ট দেশেকে ব্যবহার করতে দেয় সংস্থাটি। যার ধর্মীয় সহিষ্ণুতা, উগ্রবাদ এবং সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচারের একটি খারাপ রেকর্ড রয়েছে। ভবিষ্যতে এজাতীয় প্রস্তাব গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকতে ওআইসিকে আমরা দৃঢ়ভাবে পরামর্শ দিচ্ছি। নাইজারে গত ২৭ থেকে ২৯ নভেম্বর ৪৭তম ওআইসি সম্মেলনে মিলিত হয়েছিলেন গুরুত্বপূর্ণ মুসলিম দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। করোনা ও কূটনৈতিক সম্পর্কের পাশাপাশি বৈঠকে আলোচনা হয়েছে জম্মু-কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে। উল্লেখ্য ২০১৯ সালে কাশ্মীরের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করে ভারত সরকার। ফলে কাশ্মীর এতদিন যে বিশেষ অধিকার পেত, তা এর মাধ্যমে খারিজ হয়ে গেছে। একই সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যটিকে ভেঙে দুইটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করা হয়েছে। এর একটি হলো লাদাখ এবং অপরটি জম্মু-কাশ্মীর।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')