sports
 12 Jul 18, 05:43 AM
 135             0

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া।  

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া।   

স্পোর্টস ডেস্ক: শিরোপা জয়ের কত প্রস্তুতিই না সেরে রেখেছিল ইংল্যান্ড। ৫২ বছর পর আবারও সোনালি ট্রফিটা হ্যারি কেইনের হাতে শোভা পাবে- এই আশায় ইংলিশরা মস্কোয় এসে তাবু গেঁড়ে বসেছিল। কীভাবে বিশ্বকাপকে তারা বরণ করে নেবে- সেসব প্রস্তুতির অংশ বিশেষ তারা তুলে ধরছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের এক ফ্লাইটে করে কীভাবে সোনালি ট্রফিটা ফিরিয়ে নেয়া হবে, সেসবও প্রকাশ করা হচ্ছিল। কিন্তু মানুষ যা চায়, তার কি সবকিছু হয়। না হয় মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে সাদার ওপর ক্রস জার্সি পরা অংশটায় এভাবে নীরবতা, নিস্তব্ধতা ভর করতো না। হ্যারি কেইনদের চোখের জ্বলে ভাসতে হতো না। প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠার জন্য আত্মপ্রত্যয়ী ক্রোয়াটদের সামনে শেষ পর্যন্ত উড়ে যেতে হলো ইংল্যান্ডকে।

এদিন ম্যাচের শুরুতেই ক্রোয়েশিয়ার ডি-বক্সের খুব কাছ থেকে ফে-কিকের সুযোগ পায় ইংল্যান্ড। আর সেই ফ্রি-কিক থেকে কোল করেন ইংল্যান্ডের কিয়েরান ট্রিপ্পিয়ার। ম্যাচের ৮ মিনিটের সময় এই গোল করেন তিনি। এরপর গোল শোধ করতে মরিয়া হয়ে ওঠে ক্রোয়েশিয়া। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি লুকা মদ্রিচের দল। দ্বিতীয়ার্ধে গোলের জন্য আরও মরিয়া হয়ে ওঠে ক্রোয়েশিয়া। একের পর এক গোলের সুযোগ তৈরি করলেও গোল থেকে বঞ্চিত হতে হয় তাদের। অবশেষে ম্যাচের ৬৮ মিনিটে গোলের দেখা পায় ক্রোয়েশিয়া। দলের পক্ষে সেই গোলটি করেন ইভান পেরিসিচ। ইংল্যান্ড-ক্রোয়েশিয়া ১-১ গোলের ড্র নিয়েই নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ করে। এরপর ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত সময়ের প্রথামার্ধে গোলের দেখা পায়না দুই দলের কেউ। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের ১০৯ মিনিটের মাথায় ২-১ গোলে এগিয়ে যায় লুকা মদ্রিচরা। ক্রোয়েশিয়ার পক্ষে এই গোল করেন মারিও মান্দজুকিচ। আর এই গোল থেকেই জয় নিশ্চিত হয় ক্রোয়েশিয়ার। এই জয়ের মধ্যে দিয়ে এই প্রথম বিশ্বকাপের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে ক্রোয়েশিয়া।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')