technology
 27 Jan 19, 05:30 AM
 42             0

ইন্টারনেট ব্যবহারে আইপি অ্যাড্রেসিং পদ্ধতিতে যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ॥

ইন্টারনেট ব্যবহারে আইপি অ্যাড্রেসিং পদ্ধতিতে যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ॥

প্রযুক্তি ডেস্কঃ ইন্টারনেট ব্যবহারের সর্বাধুনিক ইন্টারনেট প্রটোকল বা আইপি অ্যাড্রেসিং পদ্ধতি আইপিভি-৬ এ যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ। এ পদ্ধতি চালু হলে দেশের সব ইন্টারনেট ব্যবহারকারীকে আসল আইপি ঠিকানা দেওয়া সম্ভব হবে । আইপিভি-৬ চালুর অন্যান্য সুবিধার পাশাপাশি প্রতিটি ডিভাইসের অবস্থান সনাক্ত হওয়ায় স্পুফিং বা মাস্কিং পদ্ধতিতে সংঘটিত অপরাধসহ সব সাইবার অপরাধ কমে আসবে। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানান, বাংলাদেশ সর্বাধুনিক সংস্করণের তথ্যপ্রযুক্তি গ্রহণে পিছিয়ে থাকবে না। বিশ্বের সঙ্গে সমানতালে এগিয়ে যেতে প্রয়োজনীয় সবকিছুই করবে সরকার। নতুন আইপি অ্যাড্রেসিং পদ্ধতিতে যেতে ইতোমধ্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) একটি স্টাডি গ্রুপ গঠন করেছে। এর নেতৃত্ব দিচ্ছেন কমিশনের প্রকৌশল বিভাগের মহাপরিচালক।

বাংলাদেশ এখন আইপিভি-৪ অ্যাড্রেসিং পদ্ধতি ব্যবহার করছে। অথচ অনেক দেশেরই আইপিভি-৪ ঠিকানা ফুরিয়েছে। কোনো কোনো দেশ পুরোপুরি আইপিভি-৬ ব্যবহার করছে। অনেক দেশে আইপিভি-৬ সবার কাছে না যাওয়ায় আইপিভি-৪ পদ্ধতিও পাশাপাশি ব্যবহার করা হচ্ছে। স্টাডি গ্রুপ ডিসেম্বর মাসে দুটি বৈঠকও করেছে। এতে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধি, ইন্টারনেট গেটওয়ে ও মোবাইল ফোন অপারেটররা অংশ নেন। বৈঠকগুলোতে আইপিভি-৬ গ্রহণের ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জে ও দায়িত্বগুলো নিয়ে মূলত আলোচনা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবাই আইপিভি-৬ গ্রহণের সম্ভাব্য সমস্যা, চ্যালেঞ্জ চিহ্নিত করা এবং সমাধানের উপায় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। এ জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে সবার পক্ষ থেকে কাজ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান আইভিপি ৬ বাস্তবায়ন কার্যক্রমের পরামর্শক সুমন আহমেদ সাবির। তিনি জানান, চাইলে ছয় মাসের মধ্যে দেশে আইপিভি-৬ চালু করা সম্ভব। চ্যালেঞ্জও খুব বেশি তাও নয়। অপারেটরগুলো এপনিকের কাছ হতে বরাদ্দ নিয়েই তা চালু করতে পারে। যেসব কারিগরি বিষয় রয়েছে, সেগুলো ঠিকঠাক করতে খুব বেশি সময় লাগবে না।

ইন্টারনেট যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ সাবির আরও জানান, আইপিভি-৬ চালু হলেও আইপিভি-৪ বন্ধ হয়ে যাবে তা কিন্তু নয়। দেশের সব নেটওয়ার্ক যখন আইপিভি-৬ এ আসবে তখনই শুধু আইপিভি-৪ বাদ দেওয়া যাবে। দেশের ইন্টারনেট গেটওয়ে অপারেটরগুলো আইপিভি-৬ প্রযুক্তি গ্রহণের জন্য কারিগরিভাবে তৈরি আছে বলে ওই বৈঠকে জানানো হয়েছে। ওই স্টাডি গ্রুপে অংশগ্রহণকারীদের ২৮ জানুয়ারির মধ্যে দেশে আইপিভি-৬ চালুর বিষয়ে বিস্তারিত রোডম্যাপ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। দেশে অনেক দিন থেকে বেসরকারি নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে সরকারকে আইপিভি-৬ ইন্টারনেট অ্যাড্রেসিং পদ্ধতি গ্রহণের অনুরোধ জানানো হলেও সরকারের দিক থেকে উল্লেখযোগ্য সাড়া মিলেছে এবার।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')