News71.com
 Bangladesh
 22 Aug 17, 10:26 AM
 842           
 0
 22 Aug 17, 10:26 AM

ঈদুল আজহা উপলক্ষে বরিশাল-ঢাকা রুটে সরাসরি চলবে অতিরিক্ত ৩০ নৌযান।।  

ঈদুল আজহা উপলক্ষে বরিশাল-ঢাকা রুটে সরাসরি চলবে অতিরিক্ত ৩০ নৌযান।।   

নিউজ ডেস্কঃ ঈদুল আজহা উপলক্ষে বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটে বৃদ্ধি করা হয়েছে নৌযানের সংখ্যা। ঈদ স্পেশাল সার্ভিসের প্রথম দিন থেকেই ঢাকা বরিশাল নৌরুটে সরকারি বেসরকারি সব লঞ্চই যুক্ত হচ্ছে। এর মধ্যে ঈদ উপলক্ষে প্রথমবারের মতো বহরে রাত্রিকালীন সার্ভিসে যুক্ত হয়েছে এমভি সুন্দরবরন-১১ এমভি অ্যাডভেঞ্চার-১ নামের দুইটি লঞ্চ। ৩০টি নৌযানের মধ্যে বেসরকারি ২৪টি ও সরকারি ৬টি নৌযান চলাচল করে। আগামী ২৭ অক্টোরবর থেকে শুরু হবে স্পেশাল সার্ভিস। স্পেশাল সার্ভিস চালু থাকবে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। আর সরকারি নৌযানের স্পেশাল সার্ভিস শুরু হবে ৩০ তারিখ থেকে। আজ বরিশাল জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে ঈদুল আজহার প্রস্তুতিমূলক সভায় এ তথ্য জানানো হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বরিশালের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান।

সভায় বিআইডব্লিউটিএ'র নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগ বরিশালের উপ-পরিচালক আজমল হুদা সরকার মিঠু জানান,বরিশাল-ঢাকা রুটে ২৪টি লঞ্চের মধ্যে প্রতিদিন ঢাকা ও বরিশালের দুই প্রান্ত থেকে ১৭টি লঞ্চ সরাসরি চলাচল করে। ঈদুল আজহা উপলক্ষে যাত্রীদের চাপ সামলাতে সবগুলো লঞ্চ চলাচল করবে। এর বাইরে যাত্রীদের প্রয়োজনে আরো ২/১টি লঞ্চ সংযোজন করা হতে পারে। ২৭ তারিখ থেকে ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঢাকা বরিশাল নৌ রুটে কোনো রোটেশন থাকছে না। ঘরমুখ ও কর্মস্থল ফেরত যাত্রীদের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে লঞ্চে ও টার্মিনালে সিসি-ক্যামারার ব্যবস্থা করা হবে। পাশাপাশি নৌ পুলিশ,সাদা পোশাকধারী পুলিশ, র্যা ব, কোস্টগার্ড, ফায়ার সার্ভিস, আনসার, মেরিন ভলান্টিয়ার, স্কাউটের সদস্যরা বন্দর এলাকায় দায়িত্ব পালন করবে।

যাত্রীদের নিরাপত্তা গেট দিয়ে টার্মিনালে প্রবেশ এবং বাহির হতে হবে।টার্মিনাল এলাকায় যাত্রীদের বসার ব্যবস্থা করা হবে এবং টার্মিনালের সামনের সড়কে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে রাখা হবে। প্রতিবছরের মতো দুর্ঘটনা এড়াতে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচলের রুটগুলোতে বাল্কহেড,কার্গো চলাচল নিয়ন্ত্রণে আনা হবে। অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা নিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে,পাশাপাশি বন্দর এলাকায় যাত্রীদের সচেতনতায় প্রচার-প্রচারণাও চালানো হবে। আশা করি ঈদের মতো কোরবানীতেও নিরাপদ যাত্রা হবে এ রুটের যাত্রীদের।

বিআইডব্লিউটিএ সূত্র জানায়,ঈদ সার্ভিসের লঞ্চগুলোর মধ্যে সুন্দরবন- ৮, ১০, ১১, ১২, সুরভী- ৭, ৮, ৯, পারাবত- ২, ৯, ১০, ১১, ১২, এমভি টিপু-৭, এমভি ফারহান-৮, কীর্তনখোলা-১,২ দীপরাজ এবং কালাম খান-১, তাসরিফ-১, ৪ অ্যাডভেঞ্চার-১, দিবা সার্ভিস দেশান্তর ও গ্রীণলাইন ২ ও ৩ সহ ২৪টি লঞ্চ থাকবে। তবে যাত্রীদের চাপ থাকায় এ বছরে ভায়ারুটের কোনো লঞ্চ বরিশালের ঘাটে ভিড়তে দেওয়া হবে না।

অপরদিকে ঈদ স্পেশাল সার্ভিসে ৩০ আগস্ট থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত সরকারি জাহাজ সার্ভিসে ৬টি নৌযান বরিশাল-ঢাকা রুটে চলাচল করবে। যাত্রীর প্রয়োজনে এসব নৌযানের কোনো কোনোটি বরিশাল হয়ে হুলারহাট পর্যন্ত চলাচল করবে। বরিশাল বিআইডব্লিউটিসি'র সহকারী মহা-ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ জানান,এমভি মধুমতি ও এমভি বাঙালি জাহাজের পাশাপাশি রকেট সার্ভিসে পিএস মাহসুদ, লেপচা, টার্ণ ও অস্ট্রিচসহ ৬টি নৌযান ঈদ স্পেশাল সার্ভিসে যাত্রীসেবা দেয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। পিরোজপুর থেকে ঢাকাগামী লঞ্চগুলো বরিশালের বানারীপাড়া, উজিরপুরসহ বিভিন্ন স্থানে ঘাট দিয়ে চলাচল করবে, পাশাপাশি বাবুগঞ্জ, মুলাদী, হিজলা, মেহেন্দিগঞ্জ থেকে ঢাকা-বরিশাল রুটে চলাচলরত লঞ্চগুলোও স্পেশাল সার্ভিস দিবে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন