News71.com
 Bangladesh
 18 Feb 20, 12:10 PM
 621           
 0
 18 Feb 20, 12:10 PM

ভোলায় ইলিশা ঘাটের প্রবেশ মুখে পলি॥ ফেরি চলাচল ব্যাহত

ভোলায় ইলিশা ঘাটের প্রবেশ মুখে পলি॥ ফেরি চলাচল ব্যাহত

নিউজ ডেস্কঃ ভোলার ইলিশা ঘাটের প্রবেশ মুখে পলি জমায় এবং ডুবোচরের কারণে ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌরুটে ফেরিগুলো স্বাভাবিক চলাচল করতে পারছে না। জোয়ার ভাটার উপর নির্ভর করে চলাচল করায় ঘাটের দুইপাড়ে বাস ট্রাক আটকে থাকছে দিনের পর দিন নাব্য সঙ্কট দূর করতে না পারলে সামনে ভোগান্তি আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা ফেরি কর্তৃপক্ষের। ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য চেষ্টা অব্যাহত আছে বলে জানায় বিআইডব্লিউটিএ। শীত মৌসুমে মেঘনার পানি কমে যাওয়ায় জেগে উঠেছে নদীর মধ্যবর্তী ডুবোচরগুলো। বিশেষ করে ভোলার ইলিশা ফেরিঘাটের প্রবেশ মুখে ও মজু চৌধুরীর ঘাটের রহমত আলী চ্যানেলের প্রায় ১ কিলোমিটার এলাকায় ডুবোচর জেগে ওঠায় ফেরিগুলো স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারছে না। এ রুটের কে টাইপের ফেরিগুলো চলাচল করতে ৮ থেকে ১০ ফুট পানির দরকার হলেও ভাটার সময় প্রবেশপথগুলোতে ৫ থেকে ৬ ফুটের বেশি পানি থাকে না।

ফলে ফেরি চলাচলে দিন দিন জোয়ার ভাটা নির্ভরতা বাড়ছে। সামনের দিনে এই পানি আরও কমার সম্ভাবনা রয়েছে। নাব্য সঙ্কটে ৪ থেকে ৫ কিলোমিটার ঘুরে আসতে হচ্ছে কখনও কখনও। এতে বিড়ম্বনা বাড়ার কথা জানালেন ফেরি চলাচলের সাথে সম্পৃক্তরা। ভোলায় বিআইডব্লিউটিসির ফেরি কনকচাঁপার মাস্টার অফিসার মুন্সী আজিজুর রহমান বলেন, ডুবোচর থাকার কারণে আমরা ফেরি যথাসময়ে রেসকিউ করতে পারছি না। ফেরির ট্রিপ কমে যাওয়ায় বাস-ট্রাক নিয়ে দিনের পর দিন ঘাটে আটকে থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়ছেন চালকরা। ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নাব্য সঙ্কট দূর করে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা চলছে বলে জানালেন বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তা। ভোলা নদী বন্দরে বিআইডব্লিউটিএর সহকারী পরিচালক মো. কামরুজ্জামান বলেন, আমাদের ড্রেজিং বিভাগ কাজ করছে। ড্রেজিং সম্পন্ন করে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে। এ রুট দিয়ে বাণিজ্য নগরী চট্টগ্রাম থেকে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলায় প্রতিদিন প্রায় ২শ' যানবাহন পারাপার হয়।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন