News71.com
 Sports
 01 May 16, 12:45 PM
 675           
 0
 01 May 16, 12:45 PM

বেতিসকে হারিয়ে শীর্ষে ফিরল বার্সা..শিরোপা লড়াইয়ে টিকে গেল রিয়াল মাদ্রিদ।।

বেতিসকে হারিয়ে শীর্ষে ফিরল বার্সা..শিরোপা লড়াইয়ে টিকে গেল রিয়াল মাদ্রিদ।।

স্পোর্টস ডেস্ক: লা লিগায় বার বার পালা বদলের দিনে শেষ হাসি বার্সেলোনার। প্রথম ম্যাচ জিতে শীর্ষে উঠেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। মাঝে কিছুক্ষণ আতলেতিকো মাদ্রিদ সবার উপরে থাকলেও শেষ ম্যাচে রিয়াল বেতিসকে হারিয়ে আবার শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করলো লুইস এনরিকের দল।

অপরদিকে কষ্টের জয়ে শিরোপা লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকল রিয়াল মাদ্রিদ । এবং রিয়াল মাদ্রিদের  পাশাপাশি বার্সার সঙ্গে রইলো আতলেতিকোও গতকাল শনিবার দিনগত রাতে ২-০ গোলের এই জয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ইভান রাকিতিচ ও লুইস সুয়ারেস। দুটি গোলেই দারুণ অবদান ছিল লিওনেল মেসির।

রিয়াল সোসিয়েদাদকে কষ্টে ১-০ হারিয়ে শীর্ষে উঠেছিল রিয়াল। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের দুই ঘণ্টা পরই পেছনে ফেলতে রায়ো ভায়েকানোকেও একমাত্র গোলে হারায় আতলেতিকো। শিরোপা লড়াইয়ে মাদ্রিদের এই দুই প্রতিপক্ষে পেছনে ফেলতে বার্সেলোনাকেও ভুগতে হয়েছে, বিশেষ করে ম্যাচের প্রথমার্ধে।

নিজেদের মাঠে ম্যাচের প্রথম সুযোগটা পেয়েছিল বেতিস। তবে স্ট্রাইকার রুবেন কাস্ত্রোর শট ঠেকিয়ে সে যাত্রা বার্সেলোনাকে রক্ষা করেন ডিফেন্ডার জেরার্দ পিকে। কর্নার থেকেও গোলের সুযোগ এসেছিল। তবে ব্রুনোর হেড লাফিয়ে উঠে আঙুল ছুঁইয়ে ক্রসবারের উপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন গোলরক্ষক ক্লাওদিও ব্রাভো।

বার্সেলোনা প্রথম গোলে শট নিতে পারে ২৯তম মিনিটে। এক ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে নেওয়া নেইমারের শট ঠেকান গোলরক্ষক আন্তোনিও আদান।

৩৬তম মিনিটে রাকিতিচকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় ডিফেন্ডার হাইকো ভেস্টারমানকে। একজন কম নিয়েও বার্সেলোনার আক্রমণ সফলভাবে ঠেকিয়ে যায় স্বাগতিকরা। প্রথমার্ধে বার্সেলোনার খেলা দেখে মনেই হয়নি দলটি লা লিগার গত দুই ম্যাচে ১৪ গোল করেছে।

বিরতির পর পরই সুবর্ণ একটি সুযোগ নষ্ট করেন সুয়ারেস। নেইমারের বাড়ানো বল পেয়ে খুব কাছ নেওয়া উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারের শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের পাঁচ মিনিটের মধ্যে অবশ্য বেতিসের ভুলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। মেসি উঁচু করে ডি-বক্সে বল বাড়িয়েছিলেন। গোলরক্ষক এগিয়ে এসেছিলেন বল ধরতে, বাইসাইকেল কিকে তা বিপদমুক্ত করার চেষ্টা করেছিলেন ডিফেন্ডার গেরমান পেজ্জেয়াও। ভুল বোঝাবুঝিতে কেউ বল পাননি। বল পেয়ে খালি জালে পাঠিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়ার মিডফিল্ডার রাকিতিচ।

৭৪তম মিনিটে আবারও সুয়ারেসের সুযোগ নষ্ট। মেসির বাড়ানো বল পেয়ে ১০ গজ দূর থেকেও গোলরক্ষক বরাবর শট নেন তিনি। কে বলবে গত দুই ম্যাচে আট গোল করেছেন তারকা এই স্ট্রাইকার।

৮১তম মিনিটে অবশ্য জয় নিশ্চিত করা গোলটি আসে সুয়ারেসের পা থেকেই। গোলটির অর্ধেক কৃতিত্ব অবশ্য মেসির। সময় নিয়ে অনেকটা দূর থেকে ডিফেন্ডারদের মাঝ দিয়ে ডি-বক্সে বল পাঠিয়েছিলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। এবার নিখুঁত ফিনিশিংয়ের উদাহরণ দেখান সুয়ারেস। লা লিগার এই মৌসুমে সর্বোচ্চ এই গোলদাতার এটি ৩৫ নম্বর গোল।

লা লিগার আর মাত্র দুটি রাউন্ড বাকি থাকতে ৮৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। মুখোমুখি লড়াইয়ে পিছিয়ে থাকায় সমান পয়েন্ট নিয়েও দ্বিতীয় স্থানে আছে আতলেতিকো। আর তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়ালের পয়েন্ট ৮৪।

আগের রাউন্ডেও একই ভাবে পালা বদল শেষে শীর্ষে উঠেছিল বার্সেলোনা। লা লিগার শেষ দিকে তাই দারুণ জমজমাট শিরোপার লড়াই। তবে বার্সেলোনা আগামী দুই ম্যাচে হোঁচট না খেলেই শিরোপা ধরে রাখবে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন